About Us
Chairman massage
Mission Vision
Vision 2020
Managing Committee
Founder Member
History of Society
PRODUCT
Land Development
Flat Development
H.D.P.S.
F.D.R.
DOWNLOAD
CAREER
GALLERY
Gallery
C.S.R.
NEWS
CONTACT US

বৃটিশ শাসন অবসানের পরে মূলত পাকিস্তান আমলে হাউজিং সোসাইটির একটি প্রাথমিক ধারণা খ্রীষ্টান সমাজ লাভ করে স্বর্গীয় ফাদার চার্লস জে. ইয়াং এর কাছ থেকেই। ঘটনার বিবরণ থেকে জানা যায় যে, বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী কলেজ নটরডেম কলেজ এর যাত্রা শুরু হয়েছিল লক্ষèীবাজারে। পরবর্তীতে কলেজ ক্যাম্পাস বড় করার প্রয়োজন দেখা দিলে তা স্থানান্তর করে বর্তমান মতিঝিল এলাকায় নিয়ে আসা হয়। ফলে লক্ষèীবাজারের কলেজ ভবনটি খালি হয়ে যায়। তৎকালীন হলিক্রশ ফাদারগণ ঐ ক্যাম্পাসটি বিক্রয়ের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। আর এই সুযোগে স্বর্গীয় ফাদার চার্লস জে. ইয়াং একটি হাউজিং প্রকল্পের মাধ্যমে ঐ ক্যাম্পাসটি ক্রয়ের জন্যে স্থানীয় খ্রীষ্টান নেতৃবৃন্দকে উৎসাহিত করেন। উল্লেখ করা যেতে পারে যে, কলেজ ক্যাম্পাসটিতে মোট তিনটি ভবন ছিল। ফাদারের কথায় অনুপ্রাণীত হয়ে স্বর্গীয় জোনাস রোজারিও একটি ভবন ক্রয় করেন। কিন্তু বাকী দুটো ভবন ক্রয়ের কোন খ্রীষ্টান লোক তখন পাওয়া যায়নি। এককভাবে ক্রয় করা সম্ভব না হওয়াতে সমবেতভাবে একটি হাউজিং সোসাইটি গঠনের পরিকল্পনা করেন তৎকালীন পবিত্র ক্রুশ সম্পদায়ের ফাদারগণ। ফলে স্বর্গীয় জোনাস রোজারিও এবং ফাদারদের প্রচেষ্টায় ১৯৫৯ খ্রীষ্টাব্দে খ্রীষ্টান সম্প্রদায়ের প্রথম হাউজিং সোসাইটি গঠিত হয় যার নাম ছিল ঐধৎরহমঃড়হ ঐড়ঁংরহম ঝড়পরবঃু. এই হাউজিং সোসাইটি ৮/৯টি পরিবারকে কিস্তিতে ফ্ল্যাটের ব্যবস্থা করে দেয়। তবে এই সোসাইটির কার্যক্রম পরবর্তীতে আর তেমন দেখা যায়নি। ১৯৭১ খ্রীষ্টাব্দের মুক্তিযুদ্ধের পরে এই সোসাইটির কোন কার্যক্রম টিকে থাকেনি।

 

বাংলাদেশ স্বাধীন হবার পরে ১৯৭২ থেকে ১৯৭৬ খ্রীষ্টাব্দ পর্যন্ত ঢাকা শহরের উপরে অভিবাসীদের চাপ ক্রমবর্ধমান হারে বাড়তে থাকে এবং ভাড়া বাড়ী পাওয়াও কষ্টসাধ্য হয়ে ওঠে। আবার জীবন ও জীবীকার তাগিদে যারা এর আগে ভারতের কোলকাতায় অবস্থান করছিলেন তাদের অনেকেই ঢাকায় ফিরে আসেন। ফলে অনেক খ্রীষ্টান পরিবারই আবাসন সমস্যায় পতিত হয়। এর হাত থেকে মুক্ত হবার জন্যে খ্রীষ্টান সমাজের কয়েকজন নেতা প্রচেষ্টা চালান যাতে একটি হাউজিং সোসাইটি গঠন করা যেতে পারে। যেহেতু দি খ্রীষ্টান কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন আগেই যাত্রা শুরু করেছিল তার দৃষ্টান্ত অনুসরণ করেই সমবায়ী প্রচেষ্টার মাধ্যমে একটি হাউজিং সোসাইটি গঠনের উদ্যোগ নেয়া হয়। মন্ডলীর পক্ষ থেকে হাউজিং সোসাইটি গঠনে অন্যতম সহায়ক শক্তি হিসেবে যিনি পাশে এসে দাঁড়ান তিনি হলেন স্বর্গীয় আচবিশপ মাইকেল রোজারিও, ডিডি। আর ব্যক্তি পর্যায়ে এই পথের পথিকৃৎ হলেন স্বর্গীয় ডানিয়েল কোড়াইয়া। তাঁর সাথে ছিলেন মি. আলেকজান্ডার রোজারিও সহ আরও কয়েকজন সমবায়ী ব্যক্তিত্ব। তাদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ১৯৭৭ খ্রীষ্টাব্দের ১৪ এপ্রিল একটি নবজাত শিশু হিসেবেই জন্ম লাভ করে "দি মেট্রোপলিটান খ্রীষ্টান কো-অপারেটিভ হাউজিং সোসাইটি লি:" এই সোসাইটি গঠনের প্রথম সভাটি অনুষ্ঠিত হয়েছিল স্বর্গীয় ডানিয়েল কোড়াইয়ার বাস ভবন ৩৪, পূর্ব তেজতুরীবাজার, তেজগাঁও,ঢাকা-১২১৫ এ। তবে ঐ সভাতেই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল যে হাউজিং সোসাইটির ঠিকানা হবে হলি রোজারি চার্চ, তেজগাঁও, ঢাকা।

 

সোসাইটির সংক্ষিপ্ত ইতিহাস:

প্রথম ঠিকানা: হলি রোজারী চার্চ, তেজগাঁও, ঢাকা

রেজিষ্ট্রেশন: ৬ জুন, ১৯৭৮ খ্রীস্টাব্দ

প্রাথমিক সদস্য সংখ্যা: ২৭ জন

প্রথম প্রকল্প: রাজাবাজার প্রকল্প

প্রথম পৃষ্ঠপোষক: স্বর্গীয় আর্চবিশপ মাইকেল রোজারিও ডি.ডি.

প্রথম গৃহ নির্মাণকারী এলোটি: মি. লিও মধু (মহাখালী ১ নং প্রকল্প)

প্রথম বার্ষিক সাধারন সভা: ২৯ জুন ১৯৮০ খ্রীষ্টাব্দ

বর্তমান ঠিকানায় স্থানান্তর: এপ্রিল ১৯৮১ খ্রীষ্টাব্দ

 

এসভাতে যে সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় তা'হলো

১১ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি গঠন। এর আহবায়ক ছিলেন মি. ডানিয়েল কোড়াইয়া ও সদস্য সচিব মি. পিটার হালদার।
সোসাইটির নামকরণ করা হয় "দি মেট্রোপলিটান খ্রীষ্টান কো-অপারেটিভ হাউজিং সোসাইটি লিঃ"
ঠিকানা হলি রোজারি চার্চ, তেজগাঁও, ঢাকা।
তিন সদস্য বিশিষ্ট উপদেষ্টা পরিষদ গঠন। ১. ফাদার উর্বাণ কোড়াইয়া ২. ব্রাদার কনরার্ড রজার ও ৩. এডভোকেট লাফন্ড গমেজ।
হাউজিং সোসাইটির শেয়ার মূল্য ধরা হয় ১০০ টাকা এবং ভর্তি ফি বাবদ ৫০ টাকা নির্দ্ধারণ করা হয়।
এই সভাতেই সিদ্ধান্ত নেয়া হয় যে, সোসাইটি জমি ক্রয় করে তা প্লট আকারে সদস্য-সদস্যাদের মাঝে বরাদ্দ দিবে।
সোসাইটির জন্যে একটি উপবিধি প্রণয়ণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।